ঠাণ্ডা, সর্দি ও কাশি স্বাস্থ্য পরামর্শ

ইনফ্লুয়েঞ্জা বা ফ্লু রোগের কারন, লক্ষণ ও প্রতীকার

ইনফ্লুয়েঞ্জা অথবা ফ্লু একটি ভাইরাস জনিত রোগ শ্বাসতন্ত্রের ছোয়াছে রোগ। এটির কারণে অল্প থেকে অতিরিক্ত রোগা হয়ে যেতে পারে। ফ্লু সাধারণত হাঠাৎ করে আক্রমণ করে।

 

উপসর্গ গুলো হলো:

  • জ্বর
  • কাশি
  • গলা ব্যাথা
  • নাক থেকে পানি পড়া
  • মাংশ পেশিতে ব্যাথা
  • মাথা ব্যথা
  • ক্লান্তি বোধ
  • মাঝে মাঝে অনেকের বমি, ডায়রিয়া হতে পারে,
  • সধারণত ছোটরা রেশী আক্রান্ত হয়।

 

ফ্লু এর জটিলতা:

ফ্লু সাধারণত দুই সপ্তাহের কম থাকে কিন্তু কিছু লোকের বেশী দিন থাকার জন্য নিউমোনিয়া হয়ে যেতে পারে। এছাড়া ব্রণকাইটিস, সাইনাস্, এক কানের ইনফেকশন হতে পারে।

 

কারা বেশি আক্রান্ত হয়:

ফ্লু যে কোন বয়সেই হতে পারে। তবে ৬৫ বছরের পরে ফ্লু আক্রান্ত হলে অন্যরোগ দ্বারা আক্রমনের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

 

জরুরী সাবধানতা:

শিশুদের ক্ষেত্রে

  • শ্বাসকষ্ট হলে
  • নীলাভ চামড়ার রুপ
  • পর‌যাপ্ত পানি ও খাবার না খেতে চাইলে
  • ঘুম ঘুম ভাব
  • খিটমিটে মেজাজ
  • জ্বর ও ফুসকুরি

বড়দের ক্ষেত্রে:

  • শ্বাসকষ্ট
  • বুকে ব্যাথা অথবা চাপ
  • হঠাৎ করে ঘুম ঘুম ভাব
  • বমি
  • জ্বর ও বেশি কাশি

ইনফ্লুয়েঞ্জা বা ফ্লু এর সময় :

ডিসেম্বর, জানুয়ারী, ফেব্রুয়ারী, মার্চ্ তবে ফেব্রুয়ারীতে বেশী হয়।

 

চিকিৎসা:

অল্প উপসর্গসহ ফ্লু আক্রান্ত হলে মেডিকেল চিকিৎসা প্রয়োজন নেই। বাড়ীতে থাকা যাবে তবে সুস্থ লোক থেকে দূরে থাকবে হবে। তবে অ্যান্টি ভাইরাল ঔষধ দিয়েও চিকিৎসা করা যায়।

 

অ্যান্টি ভাইরাল ঔষধ অ্যান্টিবায়োটিক থেকে আলাদা একটি রোগের উপসর্গগুলোকে কমিয়ে দেয়।

  •  
    5
    Shares
  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
ডা: সেলিনা আক্তার বানু
এম.বি.বি.এস, এমপিএইচ, ডি, এল, পি (ইউ কে), সিসিডি, (ডায়বেটিস এবং হৃদরোগ), পিজিটি (গাইনি). বর্তমানে ডা: সেলিনা ব্রাক ইউনিভার্সিটি মেডিক্যাল সেন্টারে সিনিয়র মেডিক্যাল কনসালটেন্ট হিসাবে কর্মরত আছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।